goddess and her servant

সারাদিন বান্ধবীদের সাথে হইচই করে ঘুরে ক্লান্ত হয়ে বাড়ি ফিরলো রাহুলের ছোট বোন প্রিয়া। সদ্য কলেজে ওঠা প্রিয়া সারাদিন ঘুরে, সিনেমা দেখে, শপিং করে ক্লান্ত হয়ে পরেছিল । রাহুল জানতো কিভাবে ক্লান্ত ছোট বোনের সেবা করতে হয় । ওর কাছে বোন মানে ভগবানের চেয়েও বেশী কিছু। প্রিয়া নিজের ঘরে এসে খাটে শুয়ে পরলো, শপিং এর ব্যাগ দাদার হাতে ধরিয়ে দিয়ে। রাহুল সযত্নে সেগুলো গুছিয়ে রাখলো। তারপর বোনের ঘরে এসে বোনের পায়ের কাছে হাটুগেরে বসে পরলো । সদ্য ১৮ এ পরা প্রিয়া কে লাল হলুদ ফুল আঁকা সাদা টপ, কাল স্কার্ট আর আকাশি বুটে অপূর্ব সুন্দরী লাগছিলো। রাহুল ৩ বছরের ছোট বোনের আকাশি বুট জুতো পরা পায়ে মাথা ঠেকিয়ে প্রনাম করলো । তারপর ভালো দাদার মত বোনের বুট জুতোর তলা জিভ দিয়ে চেটে পরিষ্কার করতে লাগলো । বোনের জুতোর তলার যাবতীয় ময়্লা সেচ্ছায় জিভ দিয়ে মুখ গহ্বরে টেনে নিতে লাগলো রাহুল। প্রিয়া হাসিমুখে দাদার সেবা নিতে লাগলো , আর মাঝে মাঝে দাদার মুখে বুট জুতো পরা পা দিয়ে লাথি মারতে লাগলো । বোনের জুতো চেটে নতুনের মত পরিষ্কার করে দিল রাহুল, তারপর সযত্নে বোনের জুতো খুলে রেখে আসলো জুতো রাখার তাকে । বোনের পা ধুয়ে দিল গরম জল এনে , সেই জলটা চরণামৃত ভেবে ভক্তিভরে পান করলো । তারপর বোনের পায়ের কাছে বসে বোনের পা দুটো কোলে তুলে নিয়ে যত্ন করে টিপ্তে লাগলো বাধ্য দাদা রাহুল।