দিদির সেবা

সকালে ঘুম থেকে ওঠার পর থেকেই মন দিয়ে দিদির সেবা করছিল অজয় ।
রোজি করে । আজ সকাল ৬টায় ঘুম থেকে উঠে প্রথমে দিদির জন্যে ব্রেক্ফাসস্ট বানায় ও , সঙ্গে চা । তারপর দিদির ঘরে গিয়ে দিদির পায়ে চুম্বন করে ঘুম ভাঙ্গায় দিদির। মুখে হাসি ঝুলিয়ে উঠে দাড়ায় ওর দিদি সীমা । ও দিদির পায়ের কাছে হাটুগেরে বসে দিদির পায়ে লাল চটি পরিয়ে দেয় । সীমা বাথ্রুমে চলে যায় ফ্রেশ হতে । ফিরে এসে সীমা আরাম করে গদি মোড়া চেয়ারে বসে টিভি দেখতে দেখতে খেতে থাকে । ওর ২ বছরের ছোট ভাই অজয় ওর পায়ের কাছে বসে মন দিয়ে ওর ২ টো পা টিপ্তে থাকে । এক্টু পরে হঠাত ওজয়ের মুখে সজরে লাথি মারে সীমা । অজয় উল্টে পরে যায় । “ মন কোথায় থাকে তোর ? চায়ে চিনি কম কেন ? অজয় ভয় পেয়ে যায় । উঠে দিদির পায়ে চুমু খেয়ে ক্ষমা চাইতে থাকে । সীমা লাথি মেরে ওকে সোজা করে দেয় । তারপর ওর ব্ঁ হাতের তালুর ওপর ডান পা রেখে উঠে দাড়ায় । বাঁ পা টা রাখে নিজের ২ বছরের ছোট ভাই অজয়ের মুখের ওপর । ভাই এর মুখটা পায়ের তলা দিয়ে ঘষতে থাকে। ওজয় দিদির পায়ের তলায় চুমু খেয়ে ক্ষমা চাইতে থাকে দিদির কাছে । একটু পরে সীমা ভাইয়ের মুখটা বাঁ পা দিয়ে চেপে ধরে । অজয়ের নাকের ফুটো বন্ধ হয়ে যায় , বাতাসের অভাবে ওর দমবন্ধ হয়ে আসে । তবু ওর বড় ভাল লাগে তার ওপর দিদির এই অত্যাচার । দিদির পায়ের তলায় চুম্বন করে দিদিকে ধন্যবাদ দিয়ে যেতে থাকে ও ।