অপ্সরা ( লাড্ডু )

৩ বছর আগের কথা । কিছু বিকৃতি বাদ দিলে আমি তখন ছিলাম আর ৫ জনের মত স্বাভাবিক এক মানুষ আমি কলেজে পড়তাম , ১ম বর্ষে । থাকতাম কলেজের হস্টেলে ।

এক ঘরে ৩ জন করে থাকতে হত । আমার রুম মেট হস্টেল ছেড়ে দেওয়ায় আমার সুবিধাই হয়েছিল । একা থাকার জন্য পেয়ে গিয়েছিলাম আলাদা ঘর । আমি কোন দিনই খুব সামাজিক ছিলাম না । বন্ধুদের সাথেও মেলামেশা কম করতাম। ক্লাসে যেতাম হয়ত মাসে একদিন । সারাদিন কাটত আমার সাধের মোবাইল এ ইন্তারনেট এর মাধ্যমে খুজে পাওয়া এক অলীক , বিক্রিত জগতে । আমি আমার হোস্টেল এর পুরন ভাঙ্গা ঘরে বসে রছনা করেছিলাম ফেমডম এর এক অলীক সাম্রাজ্য । যেখানে আমিই ছিলাম রাজা , আবার একি সঙ্গে ক্রীতদাস ও ।
প্রথম দিকে আমি জানলা বড় একটা খুলতাম না । আমার অলীক সাম্রাজ্যের রাজকুমারী যে থিক জানালার ওপারেই রয়েছে সেটা প্রথম কয়েক মাশ বুঝতে পারিনি তাই।

সেটা আমার ১ম বর্ষের নভেম্বর মাসের এক দুপুর । আমি জানালা খুলেছিলাম বহুদিন ধরে ছেঁড়া কাগজে জমান আমার বীর্যকে ঘর থেকে বাইরে ফেলার জন্য । হঠাত চোখ গেল জানালার ঠিক উলটো দিকে । আমার জানালার উলটো দিকেও একটা জানালা , পাশের বাড়ির । আর তার খোলা কপাটের ওপাশে দেখা যাচ্ছে একটা মেয়েকে । অপূর্ব সুন্দরী । ফরসা মুখটা এত সুন্দর , একবার চোখ গেলে চোখ ফেরান যায়না । বয়েস ১৪ – ১৫ হবে ।

আমি একদৃষ্টে চেয়ে রইলাম মেয়েটার দিকে । মেয়েটা একবার তাকাল , তারপর চোখ ফিরিয়ে নিল আমার দিক থেকে । আমি পারলাম না । নেশাচ্ছন্নের মত তাকিয়ে রইলাম কাঙ্খিত নেশাদ্রব্যের দিকে।

আমার রুটিন একটু বদলে গেল তখন থেকে । ফেমডম পড়ার সাথে যুক্ত হল মেয়েটার দিকে ঘন্টার পর ঘন্টা চেয়ে থাকা । লক্ষ করলাম মেয়েটা স্কুল যাওয়া ছাড়া বাড়ি থেকে বেরয় না একদম । ওর বাড়ি থেকে বেরতে দেয় না বধহয় । শুধু মাঝে মাঝে পাশের বাড়ির ওরই সমবয়েসী একটা মেয়ে আসে ওর ঘরে । ওকে দেখার পর ১০ – ১২ দিন কেটে গেল । একদিন সন্ধ্যা বেলা মোবাইলে একটা ফেমডম গল্প পড়তে পড়তে হস্তমৈথুন করছিলাম । আমার প্যান্ট এর চেন খোলা , বাঁ হাতের তালুতে উত্তেজিত মহারাজ , আর ডানহাতে মোবাইল ধরা । হঠাত লক্ষ করলাম খোলা জানালার ওপাশে এসে দারিইয়েছে আমার স্বপ্নের রাজকুমারী । ওর হাতে ধরা একটা নীল চটি । আমি জানালা বন্ধ করতে ভূলে গেছি । আমার যৌনাঙ্গ মেয়েটা পরিস্কার দেখতে পাচ্ছে , আমার থেকে ৩ -৪ বছরের ছোট মেয়েটির সামনে আমি সম্পূর্ণ উলঙ্গ । আর সেই অবস্থায় মেয়েটি আমাকে ওর চটি দেখাচ্ছে । অপমান বোধ জেগে উঠল মনে , আর যৌন উত্তেজনাও নিওন্ত্রনহীন হয়ে পড়ল একি সাথে । প্রবল বেগে বীর্য রাশি বেরিয়ে এল আমার উত্তেজিত যৌনাঙ্গ থেকে । উফফফফ , কি আরাম !!

আমার যৌনাঙ্গ আসতে আসতে শান্ত হয়ে এল । লজ্জা পেয়ে ছোট্ট হয়ে যেন মুখ লুকাল আমার হাতের তালুতে । লজ্জা বোধ ফিরে এল আমার মধ্যেও । মেয়েটা তখন গম্ভীর মুখে তাকিয়ে আছে আমার দিকে । আমি প্যান্টের চেন লাগিয়ে জানালার দিকে এগিয়ে গেলাম । ঠিক জানালার সামনে গিয়ে গাল বাড়িয়ে ইঙ্গিত করে মেয়েটাকে বললাম আমার গালে ওর হাতে থাকা চটিটা দিয়ে মারতে । তারপর দুইহাতে কান ধরে উঠবস করতে লাগলাম । মুখে ফুটে উঠল ক্ষমা চাওয়ার ভাব । মেয়েটার মুখে হাসি ফুটে উঠল । গভীর আগ্রহ নিয়ে আমার হিউমিলিয়েশন দেখতে লাগল । কি এক অজানা আনন্দ আমাকে তখন গ্রাস করেছে । নিজের ওপর তখন আর নিওন্ত্রন নেই আমার । কোন মহাজাগতিক শক্তির অঙ্গুলিহেলনে তখন যেন নিওন্ত্রিত হচ্ছি আমি । এক অদম্য আনন্দে আমি নিজের অপমান চালিয়ে জেতে লাগলাম এই ওপরূপ অপ্সরার সামনে । হায় , তখন যদি জানতাম এর পরিনতি কি হতে চলেছে !